চিলমারীতে শীতের আমেজ ব্যস্ততা বাড়ছে ধনুকরদের

রংপুর

কুড়িগ্রাম, চিলমারী প্রতিনিধি.

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে শীতের আগমনী বার্তায় লেপ-তোষক তৈরীতে ব্যস্ত দিন কাটাচ্ছে ধনুকররা। গ্রামীন জনপদে বিরাজ করছে হিম হিম আমেজ। সকাল এবং সন্ধায় দৃষ্টিসীমা হরন করছে কুয়াশায়।দিনের তাপমাত্রা হ্রাস পেয়েছে,সন্ধা হলে কুয়াশায় ঢেকে যাচ্ছে এখানকার জনপদ।রাত গভীর হওয়ার সাথে সাথে হাল্কা শীত পড়ায় ফ্যানের কদর কমে বাড়তে শুরু করেছে হাল্কা কাঁথা,কম্বল ও চাদরের। ফলে বেরিয়ে পড়ছে তুলে রাখা কাঁথা,কম্বল,লেপসহ শীত নিবারনের সকল বস্ত্র।সেই সাথে মানুষ আগাম ভীড় জমাচ্ছে ধনুকরদের দোকানে দোকানে লেপ-তোষক তৈরী করে নিতে। আর গ্রাহকের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় লেপ-তোষক তৈরীতে ব্যস্ত দিন কাটাচ্ছে এখানকার ধনুকররা।চিলমারী থানাহাট বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী সেলিম রেজা জানান,এবারে শীতের তীব্রতা বাড়বে আশঙ্কা করে মানুষ আগাম লেপ-তোষক তৈরীতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।এখানে প্রতিটি লেপ ১হাজার ৫’শ থেকে ২হাজার টাকায় এবং তোষক ১হাজার থেকে ১৭শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কাপড় ও তুলা ব্যবসায়ী সোহেল ক্লথ স্টোরের মালিক মোঃ মুনছুর আলী বলেন,উপজেলায় শীতের আগমনী বার্তা এসে পড়ায় মানুষ আগাম লেপ-তোষক তৈরীতে ঝুকে পড়েছেন। তাই লেপ-তোষকের কাপড় ও তুলার ব্যবসা বর্তমানে জমে উঠেছে।ধনুকর আবুল কালাম আজাদ ও ইছির উদ্দিন  জানায়,আমরা প্রতিদিন গড়ে ৭ থেকে ১০টি লেপ/তোষক তৈরী করে ২হাজার থেকে ২হাজার ৫’শ টাকা পর্যন্ত রোজকার করতে পারি। লেপ-তোষক তৈরীর কাজে ব্যস্ত ধনুকর আসাদুল,আকবর আলী ও ডালিম মিয়া জানান,বর্তমানে তারা প্রতিটি লেপ সেলাই বাবদ আড়াইশ থেকে ৩শ টাকা ও তোষক সেলাই বাবদ ২শ টাকা হারে প্রতিদিন ৫-১০টি লেপ-তোষক সেলাই করতে পারে। তারা বৎসরের এই সময়টার উপার্জন দিয়ে বাকী সময় পারি দেয়ার জন্য দিন-রাত একাকার করে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *