রংপুরে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী দশ লাখ তরুণ-তরুণীকে প্রশিক্ষন দিয়ে কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা হবে

রংপুর

নিজস্ব প্রতিবেদক.

তথ্য ও যোগযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শন অনুযায়ী বৈষম্যমুক্ত দেশ ও বিকেন্দ্রীকরণের কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি ঢাকার বাহিরে হাজার হাজার গ্রামের উন্নয়ন হলে দেশের উন্নয়ন হবে বলে বিশ্বাস করেন। সেজন্য সারা দেশে সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক, হাইটেক পার্ক নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এক সময়ের অবহেলিত উত্তরবঙ্গের বেকারদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে রংপুরকে ডিজিটাল ইকোনমিক হাব করবে সরকার। রংপুরের সব শিক্ষাপ্রতিষ্টানে শেখ রাসেল ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব গড়ে তোলা হবে। স্কুল অব ফিউচার নামে নতুন প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। প্রত্যেকের সন্তান যেন ডিজিটাল দুনিয়ার সাথে নিজেকে খাপ খাইয়ে নিতে পারে সেজন্য দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে রংপুর পীরগঞ্জ লালদিঘিতে নির্মাণাধীন শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ছেলে আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের ইচ্ছে অনুযায়ী রংপুরসহ সারাদেশের ৮টি স্থানে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার নির্মান করা হচ্ছে। আরও ১১টি নতুন অনুমোদন পেয়েছে। আমরা আশা করছি ২০২৫ সালের মধ্যে ৬৪ জেলায় এ প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে পারবো। তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশের ৭০ শতাংশই তরুণ। তাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে। আধুনিক বিশ্বে প্রযুক্তি নির্ভর কর্মসংস্থানই তাদের একমাত্র উপায়। এসএসসি, এইচএসসি পাশ করা প্রত্যেক তরুণকে মানবসম্পদে পরিণত করতে তাদের ৬ মাস মেয়াদী, ১ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা কোর্স করানো হবে। তারা যেন নিজ এলাকায় বসে আন্তর্জাতিক মার্কেট প্লেসে কাজ করতে পারে সে ব্যবস্থা করা হবে। শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের মাধ্যমে আগামী ২ বছরের মধ্যে প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানে ২ থেকে ৩ হাজার ব্যক্তির কর্মসংস্থান হবে। প্রতি বছর প্রশিক্ষন, ইনকিউবেশন, স্টার্টআপ বিভাগে তারা কাজ করবে। ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য পূরণে ২০৪১ সাল নাগাদ আমরা ১০ লাখ তরুণ-তরুণীকে প্রশিক্ষণ দেব এবং ৫ লাখ তরুণ-তরুণীদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করবো। এরপর পীরগঞ্জ উপজেলা অডিটরিয়ামে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের উদ্বোধন করেন, অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি। জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিভাগীয় কমিশনার আবদুল ওয়াহাব ভূঞা, পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার, পীরগঞ্জ পৌর মেয়র তাজিমুল ইসলাম শামীম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, সহ-সভাপতি একেএম ছায়াদত হোসেন বকুল, সাধারন সম্পাদক অ্যাড. রেজাউল করিম রাজুসহ অন্যরা। এ সময় শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের জন্য অধিগ্রহণ করা জমির মালিকদের মাঝে চেক বিতরন করা হয়। সকালে বিশিষ্ট পরমানু বিজ্ঞানী ড. এম ওয়াজেদ মিয়ার কবরে পুস্পার্ঘ অপর্ণসহ কবর জিয়ারত করেন প্রতিমন্ত্রী পলক।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *