অভাবের তাড়নায় ছেলের মুখে বিষ তুলে দিয়ে মায়েরও আত্মহত্যা

জাতীয়

 

প্রতিদিনের ডেস্ক.

গাজীপুরের কাপাসিয়ার বারিষাব ইউনিয়নের বরজাপুর গ্রামে গত শনিবার রাতে বিষপানে মা ও ছেলে আত্মহত্যা করেছে। অভাব-অনটন ও পারিবারিক কলহে রাত ৯টার দিকে রাজিয়া বেগম (৫০) প্রথমে শারীরিক প্রতিবন্ধী ছেলে সজীবকে (১৩) বিষ পান করায় এবং পরে নিজেও বিষপান করে। খবর পেয়ে রোববার সকালে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এলাকাবাসী জানান, প্রায় ১০ বছর পূর্বে বরজাপুর গ্রামের হতদরিদ্র ফজলুল হক তিন ছেলেকে রেখে মারা যান। স্ত্রী রাজিয়া বেগম এক শারীরিক প্রতিবন্ধী ছেলেসহ তিন সন্তানকে নিয়ে খুবই দুঃখ কষ্টে দিন কাটে তার। বিভিন্ন বাড়িতে কাজ করে ভিটে-মাটিহীন সন্তানদের নিয়ে বসবাস করতেন। সম্প্রতি দুই ছেলে বিয়ে করে স্ত্রী সন্তান নিয়ে আলাদা সংসার করছে। রাজিয়া বেগম ছোট ছেলে শারীরিক প্রতিবন্ধী সজীবকে নিয়ে আলাদা থাকে। অভাব-অনটনের কারণে সজীব, মা ও পরিবারের অন্যদের খুব বেশি বিরক্ত করত। এসব সইতে না পেরে গত শনিবার ছেলেদের সঙ্গে মায়ের কথা কাটাকাটি হয়। রাতে দুঃখ, কষ্ট ও অভিমানে রাজিয়া বেগম প্রথমে ছেলেকে ও পরে নিজেও বিষপান করেন। পরিবারের লোকেরা তাদের উদ্ধার করে রাত ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে ছেলে সজীবের মৃত্যু হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজিয়া বেগমকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে ঢাকার উত্তরার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেয়া হলে রাত ২টার সময় সেখানে তার মৃত্যু হয়। কাপাসিয়া থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম জানান, ময়নাতদন্তের জন্য মা ও ছেলের লাশ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আপাতত এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। পরবর্তী সময়ে কোনো অভিযোগ পেলে তদন্তসাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *